মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

পাইলগাঁও জমিদারবাড়ি

প্রাচীন পুরাকীর্তির অন্যতম নিদর্শন সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও জমিদারবাড়ি। প্রায় সাড়ে পাচ একর ভূমির উপর প্রতিষ্ঠিত তিনশত বছরেরও বেশী পুরনো এ জমিদার বাড়িটি এ অঞ্চলের ইতিহাস-ঐতিহ্যের নিদর্শন।

 প্রায় তিনশ বছর আগে পাইলগাঁও জমিদার পরিবারের প্রধান কর্তা জমিদার ব্রজেন্দ্র নারায়ণ চৌধুরী ছিলেন একজন প্রখ্যাত রাজনীতিবীদ ও শিক্ষাবীদ। তিনি ছিলেন আসাম আইন পরিষদের সদস্য ও সিলেট বিভাগের কংগ্রেস সভাপতি । তিনি সিলেট সরকারী মহিলা কলেজের ভুমি দান করে এর উপর কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন। পরে সেই কলেজের অধ্যক্ষও ছিলেন তিনি। তাঁর ভাই সুখময় চৌধুরী ছিলেন ব্রিটিশ ভারতের ম্যাজিষ্ট্র্রেট। ১৯১৯ সালে জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও গ্রামে সর্বপ্রথম মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয় ব্রজেন্দ্র নারায়ণ চৌধুরীর প্রতিষ্ঠা করেন। এরকম অসংখ্য প্রতিষ্ঠান তাঁদের কর্মকান্ডের নির্দশন হয়ে সিলেটের বিভিন্ন স্থানে কালের স্বাক্ষী হয়ে আছে। পাইলগাঁও জমিদারবাড়িতে রয়েছে এককালের নয়নাভিরাম সৌন্দর্য্যমন্ডিত ২টি বিশাল পুকুর ও একটি সুন্দর কাচারী ঘর। যেখানে জমিদার প্রজাদের বিভিন্ন সমস্যার কথা শুনে তা সমাধানের চেষ্টা করতেন। সেখানে সাজাপ্রাপ্ত আসামীদের জন্য একটি কারাগারও রয়েছে। আরো রয়েছে একটি সুরম্য অট্টালিকা যেখানে জমিদার পরিবারের লোকজন বসবাস করতেন এবং বেশ কয়েকটি মন্দির। একটি সান বাধঁনো ঘাটও রয়েছে । প্রায় সাড়ে ৫ একর ভূমির উপর প্রতিষ্ঠিত এ অঞ্চলের ইতিহাস ঐতিহ্যের নির্দশন। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্বের সময় জমিদার পরিবার দেশ ছেড়ে ভারতে চলে যাওয়ায় পর বাড়ীটি বেদখল হয়ে যায়।